বিশ্বের ৫টি অদ্ভুত ও বিষ্ময়কর গাড়ি

ইউ এইচ এ সি(আল্ট্রা হেভি অ্যামফিবিএস কানেক্টর)

আমেরিকান সেনাদেপ জন্য তৈরি এই ভারী গাড়িটিকে যেকোন ধরণের ভারী বস্তুকে নিয়ে সমুদ্রের তীরে চালানো যায়। দানবের মতো দেখতে এই গাড়িটি ৪২ ফুল লম্বা এবং ২৬ ফুট চওড়া। গাড়িটি তৈরি করতে অ্যালুমিনিয়ামের ব্যবহার করা হয়েছে। গাড়িটি ১৯০ টন পর্যন্ত ওজন বহন করতে পারে।

ইয়ামাহা থ্রি হুইল বাইক

এই তিন চাকার গাড়িটি অন্যান্য সাধারণ বাইক থেকে অনেক উন্নত। এটি বাইকটি শুধু সমতল রাস্তায়ই নয় বরং এটি বরফ কিংবা পানির উপর দিয়ে চলতেও সক্ষম। বেলুনের মতো মোটা টায়ার এই বাইকটিকে পানির উপর ভেসে থাকতে সাহায্য করে। বরফের উপর দিয়ে চালানোর জন্যই মূলত এই বাইকটিকে তৈরি করা হয়েছে। বাইকটির মোটা টায়ার এটিকে যেকোন রাস্তা দিয়ে চলতে সহায়তা করে।

রাবার

এটি অত্যন্ত হালকা একটি হিউম্যান পাওয়ার গ্লাইডার। একটি সেল্ফ রাইডিং গ্লাইডার। যেটি অনেক অ্যাডভান্সড প্রযুক্তিতে তৈরি করা হয়েছে। এটি উড়ানোর জন্য আপনাকে ভালোভাবে প্রশিক্ষণ নিতে হবে। প্রশিক্ষণ ছাড়াই এটিকে উড়ানো আপনার জন্য মারাত্মক বিপদ আনতে পারে। অনেক হালকা হওয়ার কারণে এটিকে উড়ানো অনেক সহজ। কিন্তু এটি মাটিতে নামানো অনেক কঠিন কাজ। এই গ্লাইডারটিকে দুটি রশ্মির সাহায্যে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। স্পিড বাড়ানোর জন্য এটিতে একটি ইঞ্জিনও ব্যবহার করা হয়েছে। এই গ্লাইডারটির সর্বোচ্চ গতি প্রতিঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে।

বিগ ফুট কার

এটি বিশ্বের সবথেকে বড় চাকাওয়ালা গাড়ি। ১৯৭৪ সালে একটি ফোল্ড কারের মডেল অনুসারে এটিকে বানানো হয়েছিল। এটিতে ১২০ ইঞ্চি এবং ৪৮ ইঞ্চির দুটি বড় টায়ার লাগানো আছে। আমেরিকার “বব” নামে এক ব্যক্তি এই গাড়িটি তৈরি করেছেন। এটি দানবাকার গাড়িটি সামনে আসা যেকোন গাড়িকে চাপ দিয়ে গুড়ো করে ফেলতে সক্ষম।

এক্স এল ব্লেন্ড মেড

উইন্ড ব্লেন্ড পরিবহনের জন্যেই মূলত এই গাড়িটিকে তৈরি করা হয়েছে। এই গাড়িটিকে ব্লেডের সাইজের উপর ভিত্তি করে ছোট কিংবা বড় করা যায়। এমনকি এই ট্রাকটিকে ১৮০ ফিট পর্যন্ত লম্বা করা যায়। এই বিশাল ট্রাকটির জন্য সময় ও অর্থ দুটোরই সাশ্রয় হয়। এই পুরো ট্রাকটিকেই একটি রিমোটের সাহায্যেও নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এটার ইউনিক হাইড্রোলিক সিস্টেম অনেক ভারী জিনিস পরিবহনে এটিকে সাহায্য করে। অ্যাডভান্সড প্রযুক্তিসমৃদ্ধ এই গাড়িটি রাস্তায় খুব সহজেই চলতে পারে।

Post a Comment

0 Comments