গোপালগঞ্জে শ্বশুরবাড়ি থেকে জামাইয়ের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার



গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলায় শশুরবাড়িতে জামাইয়ের আত্মহত্যা নিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। সোমবার সকালে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, মোবাইলে প্রেমের সম্পর্ক থেকে দুই বছর আগে গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলার পারকরফা গ্রামের মো. জাফর শেখের মেয়ে নিপা খানমের (১৬) সঙ্গে গাজীপুর জেলার কাপাশিয়া উপজেলার মৈশা ধামনা গ্রামের মো. গোলজার মুন্সির ছেলে মো. ইসমাইল মুন্সির বিয়ে হয়।

বিয়ের কিছু দিন পর থেকে তাদের সম্পর্ক অবনতি হয়। গতকাল রোববার ইসমাইল রাত আড়াইটায় গাজীপুর থেকে শ্বশুরবাড়িতে আসে। পরে আজ সোমবার সকালে ওই বাড়ি থেকে ইসমাইল মুন্সীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

শ্বশুর বাড়ির লোকজনের দাবী, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া-বিবাদের পর ঘরের ভেতরে ফ্যানের সঙ্গে স্ত্রীর ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করে ইসমাইল। পরে দরজা ভেঙ্গে তার লাশ বের করা হয়।

মৃতের স্ত্রী নিপা খানম জানায়, ‘ইসমাইল আমাকে গাজিপুরে নিয়ে যেতে আসে। আমি তার প্রস্তাবে রাজি না হয়ে পরে যাবো বললে ঝগড়া শুরু হয়। সে ঘরের দরজা বন্ধ কেরে দিয়ে আত্মহত্যা করে। পরে পুলিশ খবর পেয়ে এসে লাশ থানায় নিয়ে যায়।

কাশিয়ানী থানার অফিসারইন চার্জ (ওসি) আজিজুর রহমান বলেন, আসল ঘটনা কী, সেটা জানতে অধিকতর তদন্ত করা হচ্ছে। ময়না তদন্তের জন্য লাশ গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Post a Comment

0 Comments