ঘণ্টায় ৭৫০টি করোনা টেস্ট করতে পারবে 'মেডিকেল ডিটেকশন ডগস'!


এবার টেস্ট কিট নয়, বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত কুকুরের মাধ্যমে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের শনাক্ত করা হবে। এই প্রশিক্ষিত 'মেডিকেল ডিটেকশন' কুকুর ঘণ্টায় ৭৫০টি করোনা টেস্ট করতে পারবে! 

গন্ধ শুঁকে লুকিয়ে থাকা আরডিএক্স, বিস্ফোরক খুঁজে দেওয়া ডিটেকশন ডগসের কাছে কোনও ব্যাপারই নয়। যে কোনো তদন্তকে সঠিক দিশা দেখাতে সারমেয়র অস্ত্র স্রেফ তার ঘ্রাণশক্তি। গন্ধ শুঁকে নিখোঁজ মানুষকে উদ্ধার করতেও তাদের জুড়ি মেলা ভার। কিন্তু চমকপ্রদ বিষয়টি হল, এবার নিজেদের ঘ্রাণশক্তি কাজে লাগিয়েই করোনা আক্রান্ত রোগীকে চিহ্নিত করবে কুকুর।

বিশেষজ্ঞদের দাবি, সব অসুখ ও ভাইরাসের নিজস্ব কিছু গন্ধ থাকে। করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীর শরীরের কিছু নমুনার গন্ধ প্রথমে শুঁকতে দিতে হবে কুকুরদের। তারপর তাদের নিয়ে বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে রোগীদের দ্রুত শনাক্ত করার চেষ্টা করা যেতে পারে। এর আগে ম‌্যালেরিয়া, ক‌্যানসার, পার্কিনসন্স ও ব‌্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন আক্রান্ত রোগীদের গায়ের গন্ধ শুঁকে বা তাঁদের শরীর থেকে নেওয়া কোনও নমুনার গন্ধ শুঁকে অসুখ চিহ্নিত করেছে লন্ডনের ওই সংগঠনের প্রশিক্ষিত সারমেয়রা। কুকুরের এই ঘ্রাণশক্তির সাহায্যে অসুখের গন্ধ বিচারের বিষয়টিও তাই এবার ফের কাজে লাগাতে চায় ব্রিটেন।

বিশ্বব্যাপী প্রতিনিয়তই বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। করোনা মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ায় বিশ্বের অনেক দেশ এ ভাইরাসের টেস্ট করত হিমশিম খাচ্ছে। তাই এবার বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত কুকুরের মাধ্যমে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের শনাক্ত করণের ব্যবস্থা করছে যুক্তরাজ্যের একটি সংস্থা।

লন্ডন স্কুল অফ হাইজিন অ্যান্ড ট্রপিকাল মেডিসিন (এলএসএইচটিএম), ডারহাম ইউনিভার্সিটি এবং মেডিকেল ডিটেকশন ডগস নামের একটি সংগঠন সম্মিলিতভাবে কুকুরের মাধ্যমে করোনাভাইরাস সনাক্তের সম্ভাবনাটি অনুসন্ধান করছে।

সংগঠনের কর্মকর্তাদের দাবি, সারমেয়দের করোনার গন্ধ বিচারের জন্য আগামী ছ’সপ্তাহ বিশেষ ট্রেনিং দেওয়া হবে। তারপরই তারা মহামারির আকার নেওয়া এই অসুখকে প্রতিহত করতে তাদের কাজে লাগানো শুরু করবে। বিজ্ঞানীদের দাবি, কুকুর গন্ধ শুঁকে নির্ভুল শনাক্ত করে। এক্ষেত্রেও তারা পারদর্শী হয়ে উঠলে তাদের রোগীদের গায়ের গন্ধ শুঁকিয়ে দেখানো হবে। এর ফলে কোনও ইঞ্জেকশন বা অন‌্য কোনও কিটের সাহায্যে করোনা ভাইরাস চিহ্নিত করার দরকারও পড়বে না।

ইতিমধ্যেই ব্রিটেনে হু হু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ‌্যা। ১২ হাজারেরও বেশি আক্রান্ত এই দেশে। মৃতের সংখ‌্যা প্রায় ৫৭৮। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন থেকে রাজপরিবারের সদস‌্য প্রিন্স চার্লস থেকে স্বয়ং এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত। এদিকে এর মধ্যেই করোনা টেস্টের কিটের অভাব দেখা দিয়েছে ব্রিটেনে। এই অবস্থায় সারমেয়কুলের ঘ্রাণশক্তি কাজে লাগানো গেলে তা নজির গড়বে। সারা বিশ্বেই করোনা ছড়িয়েছে। 

বহু জায়গায় কিটের অভাবে সময়মতো অসুখ নির্ধারণ করে দ্রুত চিকিৎসা শুরু করা যাচ্ছে না। তার চেয়েও বড় কথা, উপসর্গ দেখা দেওয়ার বেশ কিছুদিন পর মানুষ টেস্ট করতে যাচ্ছেন। তখন তাঁদের শারীরিক অবস্থার অনেকটাই অবনতি ঘটে যায়। কুকুরের ঘ্রাণশক্তির মাধ‌্যমে করোনাকে চিহ্নিত করা গেলে এই ভয়ানক অবস্থা থেকে অনেকটাই সুরাহা হতে পারে বলে আশা বিজ্ঞানীদের।

সূত্রঃ বিজনেস ইনসাইডার।

Post a Comment

0 Comments