বাগেরহাটের ধ'র্ষণে বাধা দেওয়ায় নারী আইনজীবীকে পিটিয়ে আহত করেছে সাবেক স্বামী




বাগেরহাটের ধ'র্ষণে বাধা দেওয়ায় নারী আইনজীবীকে পিটিয়ে আহত করেছে সাবেক স্বামী
আহত হারেফা খাতুন
শনিবার (০৪ এপ্রিল) দুপুরে বাগেরহাট সদর উপজেলার রণভূমি গ্রামে ওই আইনজীবীর পিতার বাড়িতে এঘটনা ঘটে। এসময় স্থানীয়রা হুমায়ুন কবিরকে আটক করে বাগেরহাট থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে এবং গুরুতর আহত হারেফা খাতুন আরিফাকে উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। হারেফা খাতুন আরিফা বাগেরহাট জেলা জজ আদালতের আইনজীবী।



আহত আইনজীবী আরিফা জানান, ‘২০১৩ সালে ফকিরহাটের উপজেলার বাহিরদিয়া গ্রামের মৃত আশ্বাদ আলীর ছেলে হুমায়ুন কবিরের সাথে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে নানা বিষয় তার সাথে অবনিবনা শুরু হয়। এর আগে এক দফায় ডিভোর্স হলেও হুমায়ুন কবিরসহ অনেকের অনুরোধে আবারো বিয়ে হয়। ২০১৮ সালের ২৬ এপ্রিল দ্বিতীয় দফায় ডিভোর্স হওয়ার পর বিভিন্ন সময় তাকে উত্যাক্ত করে আসছিল। এঘটনায় শুক্রবার তিনি জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে বাগেরহাট মডেল থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শনিবার দুপুরে তার পিতার বাড়ি রণভূমি এসে বাড়িকে কেউ না থাকার সুযোগে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। ধর্ষণে বাঁধা দিলে হুমায়ুন কবির তাকে বেধড়ক মারপিট করতে থাকে। পরে তার চিৎকারে প্রতিবেশিরা ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায় এবং হুমায়ুন কবিরকে আটক করে সদর থানায় হস্তান্তর করে।’
তার একটি হাত ভেঙ্গে গেছে এবং নিম্নাঙ্গ থেকে রক্তপাত হচ্ছে। হুমায়ুন কবিরের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানান।
বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাতাব উদ্দীন বলেন, ‘স্থানীয়রা হুমায়ুন কবিরকে আটক করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। সে এখনও পুলিশি হেফাজতে রয়েছে। অভিযোগের পর তদন্ত করে আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’

Post a Comment

0 Comments