সৌদি আরবে রোজা শুরু শুক্রবার, দুই মসজিদে তারাবির নামাজের অনুমতি


সৌদি আরবের আকাশে আজ বুধবার মাহে রমজানের চাঁদ দেখা যায়নি। আগামীকাল ৩০ দিন পূর্ণ হবে শাবান মাসের অর্থাৎ শুক্রবার থেকে সৌদি আরবে শুরু হবে মাহে রমজান। এদিকে, মক্কা ও মদিনার প্রধান দুই মসজিদে রোজার সময় জামাতে নামাজ আদায় বন্ধের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ। 

মজানে সংক্ষিপ্ত পরিসরে তারাবির নামাজ আদায়ের অনুমতি দিয়েছেন দেশটির বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ। বুধবার পবিত্র এই দুই মসজিদের প্রেসিডেন্সির পক্ষ থেকে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

মক্কার মসজিদ আল-হারাম ও মদিনার মসজিদে নববীতে ২০ রাকাতের পরিবর্তে ১০ রাকাত করে তারাবির নামাজ আদায় করা যাবে।

তবে সাধারণ মুসল্লিরা মসজিদে প্রবেশ করতে পারবেন না। শুধু ইমাম, মুয়াজ্জিনসহ মসজিদের কর্মচারীদের নিয়ে তারাবির নামাজ হবে।

দুই মসজিদের জেনারেল প্রেসিডেন্সির পক্ষ থেকে বুধবার এক বিবৃতিতে একথা জানানো হয়েছে। পবিত্র রমজান মাসে মক্কা ও মদিনায় করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষায় পূর্বসতর্কতামূলক কিছু পদক্ষেপও বাস্তবায়নের পরিকল্পনা নিচ্ছে মসজিদ কর্তৃপক্ষ।

এর আওতায় মসজিদে মুসল্লিদের প্রবেশ নিষিদ্ধ থাকার পাশাপাশি মসজিদকে জীবাণুমুক্ত রাখতেও বাড়তি পদক্ষেপ নেওয়া হবে। মসজিদের প্রত্যেক কর্মীর দেহের তাপমাত্রা পরীক্ষা করা হবে। দুই মসজিদেই নিষিদ্ধ থাকবে ইতিকাফও।

এর আগে গত ১২ এপ্রিল মুসল্লিদের তারাবি নামাজ ঘরে পড়ার পরামর্শ দিয়েছিল সৌদি কর্তৃপক্ষ। সৌদি ইসলামবিষয়ক মন্ত্রী শেখ ড. আব্দুল লতিফ বিন আবদুল আজিজ আল-শেখ মসজিদে জামাতে কোনোরকম নামাজ আদায় বন্ধ রাখাই জরুরি বলে জানিয়েছিলেন।

মহামারীর এ সময়ে কেবল তারাবিই নয়, ঈদুল-ফিতরের নামাজও ঘরে পড়ার নির্দেশনা দিয়েছেন সৌদি আরবের গ্র্যান্ড মুফতি।

তবে রমজান মাসে সাধারণ মানুষকে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনাকেটায় আরো ছাড় দিতে সৌদি আরবের বিভিন্ন শহরে জারি থাকা কারফিউয়ের সময় কিছুটা বদলাচ্ছে সরকার।


প্রসঙ্গত, সৌদিতে গত ২ মার্চ প্রথম করোনাভাইরাসের সংত্রক্রমণ ধরা পড়ে। করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় সৌদি আরব গত ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে বিদেশিদের ওমরাহ করার অনুমতি দেওয়া বন্ধ করে দেয়। পাশাপাশি ট্যুরিস্ট ভিসা দেওয়াও বন্ধ রাখে। 

এছাড়াও গত ১৭ মার্চ মক্কা ও মদিনার প্রধান দুই মসজিদ ছাড়া সৌদি আরবের বাকি সব মসজিদে জামাতে নামাজ আদায় স্থগিত করে নির্দেশ জারি করে দেশটির কর্তৃপক্ষ। পরে এ দুটি মসজিদেও জামাতে নামাজ আদায় বন্ধ করা হয়। ২৩ মার্চ সৌদি আরবজুড়ে সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত ২১ দিনের কারফিউ জারি করেছিল দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। পরে কারফিউয়ের মেয়াদ অনির্দিষ্টকালের জন্য বাড়ানো হয়।

Post a Comment

0 Comments