পরিত্যক্ত টিনের ঘরে মুখ বেঁধে ১০ বছরের ভাতিজিকে ধর্ষণ, ফুফা আটক


নিজস্ব প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের সখীপুরে এক বৃদ্ধের বিরুদ্ধে ১০ বছর বয়সী এক শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই শিশুর বাবা বাদি হয়ে বেলালের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন। পুলিশ মঙ্গলবার (১৯ মে) অভিযুক্ত ওই ধর্ষককে আটক করেছে।

আটককৃত বেলাল হোসেন (৫০) উপজেলার প্রতিমা বংকী মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত কলিম উদ্দিনের ছেলে এবং সম্পর্কে ওই শিশুটির ফুফা। ওই শিশুটি স্থানীয় একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী।

স্থানীয় প্রতিবেশী ও মামলার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, বেশ কয়েকদিন ধরে প্রতিবেশী বেলাল হোসেন টাকার লোভ দেখিয়ে শিশুটিকে যৌন হয়রানি করে ধর্ষণের চেষ্টা করে আসছিল। গত শুক্রবার (১৫ মে) বিকেলে শিশুটিকে ফুঁসলিয়ে বাড়ির পাশে পরিত্যক্ত টিনের ঘরে নিয়ে যায়। সেখানে ওড়না দিয়ে মুখ বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরে বিষয়টি কাউকে না জানানোর জন্য ওই শিশুটিকে ভয়ভীতিও দেখায়। কিন্তু পরে মেয়েটি বাড়িতে এসে তার মাকে বিস্তারিত জানায়।

আরো জানা যায়, স্থানীয় কয়েকজন মাতাব্বর ঘটনাটি টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু অভিযুক্ত বেলাল হোসেন টাকার অংক নিয়ে গড়িমসি ও পরিশোধ না করায় স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মিমাংসা সম্ভব হয়নি।

এ ঘটনায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সখীপুর থানার এসআই ফয়সাল আহমেদ বলেন, অভিযোগের পরপরই অভিযুক্ত বেলালকে আটক করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। সে প্রাথমিকভাবে ওই শিশুকে যৌন হয়রানির কথা স্বীকার করেছে। মেয়েটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্যে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

Post a Comment

0 Comments