রংপুরের পীরগাছায় ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা, ধর্ষক কলেজছাত্র গ্রেপ্তার


রংপুর প্রতিনিধি :: রংপুরের পীরগাছায় ধর্ষণের শিকার ষষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার অভিযোগে রয়েল মিয়া (১৭) নামের এক কলেজছাত্রকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গত বুধবার (২৭ মে) বিকেলে মামলা দায়েরের পর তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। গ্রেপ্তার কলেজ ছাত্র রয়েল মিয়া উপজেলার কৈকুড়ী ইউনিয়নের মিরাপাড়া গ্রামের আশরাফুজ্জামান ভুট্টোর ছেলে। সে দ্বাদশ শ্রেণির একজন শিক্ষার্থী।

ঘটনার বিবরণ জানতে চাইলে ওই স্কুল ছাত্রীর পরিবার জানায়, গত শনিবার (২৩ মে) ওই শিক্ষার্থীর পেটে প্রচণ্ড ব্যথা অনুভূত ও অসুস্থতা বোধ করায় পরিবারের সদস্যরা তাকে নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে পরে কর্তব্যরত  চিকিৎসক তার আল্ট্রাসনোগ্রাম করতে বলেন। ডাক্তারের নির্দেশে পীরগাছার একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ওই ছাত্রীর আল্ট্রাসনোগ্রাম করা হয়। আল্ট্রাসনোগ্রাম প্রতিবেদনে দেখা যায় যে ওই স্কুল ছাত্রী ২৩ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা।

বিষয়টি জানাজানি হলে ওই স্কুল ছাত্রী আরও জানায়, কলেজ ছাত্র রয়েল তাকে নানা ভয়ভীতি দেখিয়ে বেশ কয়েকবার ধর্ষণ করেছিলেন। বিষয়টি কাউকে জানালে তাকে মেরে ফেলার হুমকিও দিয়েছিলেন রয়েল। সেজন্য ভয়ে সে বিষয়টি আর কাউকে জানায়নি।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, একই গ্রামের দরিদ্র দিনমজুরের মেয়ে ষষ্ঠ শ্রেণির ওই ছাত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে দীর্ঘদিন থেকে ধর্ষণ করে আসছিল কলেজ ছাত্র রয়েল মিয়া। এক পর্যায়ে মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ায় বিষয়টি জানাজানি হলে ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে রয়েলের পরিবার ও স্থানীয় প্রভাবশালীরা। তাদের ভয়ে মামলা করার সাহস পায়নি মেয়েটির দিনমজুর দরিদ্র বাবা।

রয়েল ও তার পরিবারের অব্যাহত হুমকি-ধমকি ও লোকলজ্জার ভয়ে মেয়েটির বাবা ওই স্কুল ছাত্রীকে পাশের মিঠাপুকুর উপজেলায় ফুফুর বাড়িতে রেখে আসেন।

এদিকে স্থানীয় প্রভাবশালীদের দফায়-দফায় বৈঠকে আর সালিশিতে সমঝোতার চেষ্টা ব্যর্থ হয়। পরে পুলিশ খবর পেয়ে মঙ্গলবার (২৬ মে) রাত আনুমানিক ১১টার দিকে মেয়েটিকে মিঠাপুকুরের ফুফুর বাড়ি থেকে পীরগাছা থানায় নিয়ে আসে। একই দিন রাতে ধর্ষক রয়েলকে আটক করে পুলিশ। 

এদিকে এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদি হয়ে পীরগাছা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ওই ধর্ষকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।

পীরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম বলেন, ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী বর্তমানে ২৩ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা। এ বিষয়ে থানায় মামলা দায়ের হলে রয়েলকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

Post a Comment

0 Comments