মানিকগঞ্জে শ্যালিকাকে গলায় রশি বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ | ভিডিও ভাইরাল


নিজস্ব প্রতিবেদক :: মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলায় এক শ্যালিকাকে (১৫) গলায় রশি বেঁধে শ্বাসরোধ করে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

গত শুক্রবার (২৯ মে) উপজেলার ধল্লা ইউনিয়নের খাসেরচর লাঙ্গুলিয়া গ্রামে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার পরের দিন শনিবার (৩০ মে) দুলাভাইয়ের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ধর্ষিত হওয়া ওই তরুণী।

অভিযুক্ত হাফিজ উদ্দিন (৩০) ওই উপজেলার ধল্লা ইউপির খাসেরচর লাঙ্গুলিয়া গ্রামের ফেলু মিয়ার ছেলে ও এক কন্যা সন্তানের জনক।

ভিকটিম ওই তরুণী জানান, হাফিজ উদ্দিন সুযোগ পেলেই প্রায় বিভিন্ন সময় তাকে উত্যক্ত করতো। তার বিয়ের প্রস্তাব আসলেও তার সাথে নানাজনের প্রেমের সম্পর্ক আছে বলে মিথ্যা কুৎসা রটাতো, এভাবে মিথ্যাচরণ করে বিয়ে ভেঙ্গে দিতো। একারণে এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে গ্রাম্য সালিশিও হয়েছিলো বেশ কয়েকবার। মাস ছয়েক পূর্বে সর্বশেষ সালিশে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সামনে তাকে শাসন করা হয়, এতে তার শোধরানোর জন্য আজিম উদ্দিন, নুরুল হক মাতাব্বর, বোরহান উদ্দিন, আব্দুল কাদের, আব্দুল আজিজ, আউয়াল, তাছের মোল্লা ও নাজিম উদ্দিনসহ এলাকার প্রমূখ ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে হাফিজকে চড়-থাপ্পর দিয়ে সতর্ক করা হয়। তারপরও সে এতো কিছুতেই শোধরায়নি।

ভুক্তভোগী তরুণী আরও জানায়, গত শুক্রবার (২৯ মে) নিজ বাড়িতে সে ঘুমিয়েছিলেন। ঘরে কেউ না থাকায় সুযোগ বুঝে ওই হাফিজ চুপিসারে প্রবেশ করে তার গলায় রশি বেঁধে শ্বাসরোধ করে হত্যার ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। পরে হাফিজের স্ত্রী (তার বোন) তাকে ঐ অবস্থা থেকে উদ্ধার করেন।

ঘটনার বিষয়ে সিংগার থানার এসআই হাসান আলী জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়ে শনিবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছিলো। অভিযুক্ত হাফিক উদ্দিনকে তার নিজ বাড়িতে পাওয়া যায় নি। তবে এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।




Post a Comment

0 Comments