যুবতীদের সৌন্দর্য্যময় স্তন গড়ে তুলতে যেসব বিষয় জেনে রাখা উচিত!


ডেস্ক রিপোর্ট : সৌন্দর্যের অন্যতম এক অংশ যুবতীদের বুকের স্তন। আর এই সুন্দর অঙ্গটির যথাযথ যত্ন না নিলে এর বিপরীত হয়ে যাবে। নারীশরীর এমনিতেই রহস্যে মোড়া। যুবতীদের স্তনযুগলের সুডৌল গড়নের প্রতি আকৃষ্ট হননি, এমন পুরুষ দুনিয়ায় খুঁজে পাওয়া কঠিন। যৃবতীদের বক্ষদেশ হল তাঁর সৌন্দর্য্যের গহীন রহস্য, ঐশ্বর্য্যের চাবিকাঠি, রোম্যান্টিকতা আর মাধুর্যের মিশেল৷ আজকাল বেশিরভাগ যুুবতী-নারী স্তনের গুরুত্ব বোঝেন হয়তো বোঝেন না। আর কিভাবে নিজের স্তনকে সুডৌল ও সুন্দর করবেন তা নিয়ে ভাবনার শেষ থাকে না। 

আবার অনেকে চটকদার বিজ্ঞাপনের ফাঁদে পড়ে নানা ধরণের ব্রেস্ট এনলার্জিং ক্রিমও ব্যবহার করেন। কিন্তু এ ধরণের ক্রিম সাধারণত কোনো কাজে আসে না একথা অনেক নারীই জানেন না। অনেকেই স্তন বড় ও সুন্দর করার অনেক নিয়ম খুঁজছেন কিংবা অনেক পন্থা ইতিমধ্যেই অবলম্বন করছেন। কিন্তু তেমন কোনো সুফল পাচ্ছেন না তাদের জন্যই মূলত আজকের আমাদের এই আয়োজন।
  
মূলত ১২-১৬ বছর বয়সের মধ্যে মেয়েদের স্তনের বৃদ্ধি ঘটে। মেয়েদের স্তনের আকার বিভিন্ন হয়। এই স্তনের পরিচর্যা ঠিকমত না করলে শিথিল হয়ে ঝুলে পরতে পারে। কারো কারো শরীরের অনুপাতে বুক ছোট হয়, আবার কারো অল্প বয়সেই বুক বৃহদাকার হয়। ছোট বুক যেমন কোন নারীর সৌন্দর্য বিকাশে সহায়ক হয়না, তেমনই শরীরের তুলনায় অনেক বড় বুক বড় বেমানান লাগে। এইসব কারণে হরেক রকমের পোশাক পরেও সৌন্দর্যময়ী নারীরূপে নিজেকে তুলে ধরতে পারে না। তাই স্তন সঠিক রাখতে ও সৌন্দর্য্যময় করে গড়ে তুলতে কিছু যত্নেরও প্রয়োজন আছে।

খুব সহজ কিছু পদ্ধতিতেই এ সমস্যার সমাধান মিলতে পারে। যা একেবারেই খরচসাপেক্ষ নয়।জেনে নিন সেসব পদ্ধতি:  

১. বাথরুমে স্নান করার সময় হাত দিয়ে ব্রেস্টের চারপাশ ১০/১৫ মিনিট ম্যাসাজ করবেন। চাইলে ম্যাসাজের সময় হালকা গরম করে সামান্য সরিষার তেল বা খাঁটি মধু ব্যবহার করতে পারেন। আপনার শরীর যদি রোগা হয় তাহলে ২/৩ মাস সুষম খাদ্য খেয়ে শরীরটা ঠিক করে নিন। দুধ, ডিম, ফল একটু বেশি খেলে উপকার পাবেন। চিন্তামুক্ত থাকার চেষ্টা করবেন। শরীর বাড়ার সাথে সাথে আপনার স্তন ও বড় হবে।    

২. সঠিক মাপের ব্রা ব্যবহার করতে হবে। নইলে ব্রেস্ট ঝুলে যেতে পারে।  

৩. এক বা দুই সপ্তাহ পর পর নিজের ব্রেস্ট মাপুন, টাইট জামাকাপড় পরিধান করুন এবং সঠিক কাপ সাইজের ব্রা পরিধান করুন। এছাড়া ব্রেস্ট বড় করার জন্য ব্রেস্ট ইমপ্লান্ট সার্জারী রয়েছে। এটি ন্যাচারাল নয় বলে না করাই ভালো এবং এ পদ্বতিটি ব্যয়বহুল।

৪. দীর্ঘক্ষণ ব্রা পরে থাকলে মহিলাদের শারীরিক ক্ষতিই হয়। ফ্রান্সের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক জাঁ-ডেনিস বলছেন, যে সব মহিলারা দীর্ঘ কয়েক বছর ব্রা না পরে থেকেছেন, তাঁদের স্তনবৃন্ত উন্নত হয়েছে। কিন্তু পাশাপাশি এ ও বলেছেন যে, তাই বলে ব্রা পরা একেবারেই ত্যাগ করা যায় না। এ পরীক্ষায় তিনি ১৮ থেকে ৩৫, বিভিন্ন বয়সের প্রায় ৩০০ জন মহিলার স্তন নিয়ে গবেষণা করেছেন।

৫. স্তনের সঠিক শেইপ ফিরে পাবার জন্য আপনার প্রতিদিনের খাবারের দিকেও খেয়াল রাখতে হবে। ব্রেস্ট টাইট করার জন্য পর্যাপ্ত প্রোটিনের প্রয়োজন হয়। এজন্য আপনার প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় দুধ, ডিম এবং ডাল অবশ্যই অন্তর্ভুক্ত করবেন। এছাড়াও খনিজ ভিটামিন এবং ক্যালসিয়ামের মতো প্রয়োজনীয় পুষ্টিগুণ দরকার যা আপনি বাঁধাকপি, ফুলকপি, টমেটো, গাজর, পটল এবং ব্রকলি জাতীয় খাবার থেকে পেতে পারেন। প্রতিদিন এই খাবারগুলো খেলে ঝুলে যাওয়া স্তনের সঠিক শেইপ ফিরে পাবেন।  

৬. আপনি যদি ধুমপায়ী (প্রত্যক্ষ/পরোক্ষ) হন তাহলে আজই তা বর্জন করুন। কারণ তামাকের নিকোটিন সরাসরি বার্ধক্যকে প্রভাবিত করে এবং চামড়ার স্থিতিস্থাপকতা নষ্ট করে যা শরীরের অন্য অংশের মত স্তনের চামড়াকেও ঢিলে করে দেয়। ফলশ্রুতি, স্তনের ঝুলে পড়া!  

৭. দেহের একটি নির্দিষ্ট ওজন বজায় রাখুন। ক্রমাগত মোটা এবং রোগা হলে, ত্বকের ইলাস্টিসিটি কমে যায় এবং এতে আপনার স্তন ঝুলে পড়তে পারে।

৮. আপনি মা হয়ে থাকলে অবশ্যই বাচ্চাকে সঠিক উপায়ে ব্রেস্ট ফিডিং করান। তা আপনার স্তনের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করবে।   

Post a Comment

0 Comments