লকডাউনে বাবাকে রোগী সাজিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে চড়ে বিয়ের পিঁড়িতে যুবক


অনলাইন ডেস্কঃ লকডাউনের মাঝে সকলেই ভেবেছিলেন বিয়ে বাতিল করবেন। আগেই স্থির হয়েছিল বিয়ের দিনক্ষণ। প্রস্তুতিও হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু বাদ সাধল লকডাউন। কিন্তু পাত্র বিয়ে করতে মরিয়া। এজন্য ওই পাত্র ফেঁদে বসলো অন্য পরিকল্পনা। একটি অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করে রোগী সাজিয়ে বাবাকে তুলে নিলেন সেই অ্যাম্বুলেন্সে আর এই লকডাউন অগ্রাহ্য করে পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে বিয়ের  পিঁড়িতে বসলো এক যুবক। 


ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের মুজফ্‌ফরনগরে। আহমেদ নামে এক যুবক (২৬) বাবাকে রোগী সাজিয়ে উত্তরপ্রদেশ থেকে দিল্লি গিয়েছেন বিয়ে করতে। দিল্লির এক তরুণীর সঙ্গে বিয়ের কথা হয়েছিল তার। 

পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে উত্তরপ্রদেশ থেকে দিল্লি পৌঁছায় সে। চার হাত এক হয় তাদের। তারপর ওই অ্যাম্বুলেন্সে চড়ে বাবা এবং নববধূকে নিয়ে বাড়ি ফিরে আসে।

যদিও পরে প্রতিবেশীদের তৎপরতায় পুলিশ খবর পায়। স্বাস্থ্যপরীক্ষার পাশাপাশি ওই অ্যাম্বুলেন্স চালকের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেছে পুলিশ।

প্রতিবেশীদের দাবি, এর আগেও অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করে লকডাউনের মাঝে দিল্লি পাড়ির চেষ্টা করেছিল ওই যুবক। তবে সেবার তার পরিকল্পনা ব্যর্থ হয়। এবার বিয়ে হল ঠিকই। তবে আইনের হাতে ধরা পড়ল যুবক। প্রতিবেশীরা পুলিশকে গোটা ঘটনাটি জানায়। পুলিশ খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। সঙ্গে ছিলেন বেশ কয়েকজন স্বাস্থ্যকর্মী। তাঁরা ওই যুবকের পরিবারের সকলের এবং নববধূর পরীক্ষা করানো হয়। 

এখনও কারও রিপোর্ট হাতে এসে পৌঁছায়নি। পুলিশ ওই অ্যাম্বুলেন্স চালকের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৮৮ ধারায় মামলা রুজু করেছে।

Post a Comment

0 Comments