টেকনাফে অপহরণের পর কৃষককে হত্যা করলো রোহিঙ্গা ডাকাতরা


টেকনাফ প্রতিনিধিঃ কক্সবাজারের টেকনাফে অপহৃত ছয়জন কৃষক থেকে একজনকে হত্যা করেছে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা।বাকিদের জন্য ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা 
হয়েছে।

অন্যথায় তাদেরও মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছে রোহিঙ্গা হাকিম ডাকাতের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। নিহত কৃষক মিনাবাজার মৌলভী আবুল কাছিমের 
ছেলে আক্তারুল্লাহ (২৪)।

টেকনাফ থানার পুলিশ জানায়, স্থানীয়দের দেয়া তথ্যে পাহাড়ী এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া কৌশলে অপহৃত তিনজন ফিরে এলেও বাকি দুই জনকে মুক্তিপণ ছাড়া মুক্তি দেয়নি অভিযুক্তরা। তাদের মুক্তির জন্য ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়েছে। অন্যথায় তাদেরও মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছে রোহিঙ্গা হাকিম ডাকাতের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা।

জানা গেছে,  ২৯ এপ্রিল দিনগত রাতে মিনা বাজার শামসু হ্যাড ম্যানের ঘোষণায় কৃষকের ধান ক্ষেতে কাজ করা অবস্থায় সশস্ত্র একদল রোহিঙ্গা 
সন্ত্রাসী তাদের অপহরণ করে।
এ দিকে অপহরণের পর থেকে অভিযানঅব্যাহত রেখেছে হোয়াইক্যং পুলিশের একটি টীম।

ইনচার্জ এসআই মশিউর জানিয়েছেন, গহীন পাহাড়ে পুলিশের ছয়টি টিম করে অভিযান পরিচালনা করে তাদের (রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের) আস্তানা হতে নানা 
সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়েছিল।

তবে গহীন পাহাড় হওয়ায় রিপোর্ট লেখা
অবধি কাউকে এখন পর্যন্ত উদ্ধার করা যায়নি।

অপহরণের ঘটনা এই প্রথম নয়, এর আগেও স্কুল শিক্ষার্থীসহ নানা পেশাজীবীদের অপহরণ করে মুক্তিপণ নিয়েছে হাকিম ডাকাত। অনেককেই নির্মমভাবে হত্যাও করা হয়েছে। তাকে ধরতে ইতোমধ্যে হেলিকপ্টারযোগে অভিযান শুরু করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

জানা যায়, এর আগেও কুখ্যাত রোহিঙ্গাডাকাত আব্দুলহাকিম ও তার সন্ত্রাসীদের ধরতে হেলিকপ্টারঅভিযানসহ নানা অভিযান পরিচালনা করেছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সর্বশেষ র্যাবের সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধে সাত রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নিহত হয়েছিলেন।

Post a Comment

0 Comments